চিতলমারীতে পঙ্গু মুক্তিযোদ্ধা পরিবার কে

মো: একরামুল হক মুন্সী:
বাগেরহাটের চিতলমারীতে সংখ্যালগু পঙ্গু এক মুুক্তিযোদ্ধা পরিবারের উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। হামলাকারিরা তার স্থাপনা ভাংচুর বসতঘরে ঢুকে নগদ অর্থসহ মালামাল লুট ও বাড়ির নারী শিশু সহ চারজনকে পিটিয়ে আহত করেছে। বিষটি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো:মারুফুল আলমকে জানানো হলে সরেজমিনে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে । বৃহস্পতিবার (৪জুন) সকালে এ ঘটনা ঘটে উপজেলার বাবুগঞ্জ বাজারে।
সরেজমিনে ভিকটিম ও এলাকা বাসির সুত্রে জানাগেছে; স্থানীয় পঙ্গু মুক্তিযোদ্ধা হরবিলাস পোদ্দারের সাথে প্রতিবেশী মৃত্যু: নোয়াবালী শেখের ছেলে ইলিয়াস শেখের সাথে বিরোধপুর্ন একটি জায়গা নিয়ে গোলমাল চলে আসছিল।
এর জের ধরে মঙ্গলবার সকালে ওই জায়গা দখল করতে ইলিয়াস শেখ বহিরাগত লোকনিয়ে গড়াবেড়াও টয়লেট স্থাপন করতে গেলে মুক্তিযোদ্ধা হরবিলাস পোদ্দারের ছেলে উজ্জ্বল পোদ্দার(২৮),স্ত্রী সবিতা পোদ্দার(৫৫), মেয়ে আখি স্বর্নকার (২৮) নাতী ৬ষ্ঠ শ্রেনীর শিক্ষার্থী রাহুল স্বর্নকার বাধা প্রদান করে।
এসময় ইলিয়াসের নেতৃত্বে ১০/১৫জনের একটি দল দা’ লাঠিসোটা, লোহার রড সহ বিভিন্ন অস্ত্রনিয়ে তাদের হামলা করে এবং বেধড়ক মারপিট করে। এসময় তারা আহত হলে ওই হামলা কারিরা নগদ টাকা স্বর্নালংকারও মালামাল নিয়ে দ্রæত স্থান ত্যাগ করে। বিষটি দ্রæত উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো:মারুফুল আলমকে জানানো হলে ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।
এব্যপারে স্থানীয় ওষুদ দোকানদার লিটন মন্ডল জানান অপরিচিতও বহিরাগত লোক দিয়ে ইলিয়াস সাথে থেকে এ হামলা চালায় যা আদৌ ঠিক হয়নি।
স্থানীয় শিক্ষক প্রদীপ মন্ডল জানান, মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের উপর এক তরফা মারপিট হয়েছে ; ঠেকাতে গিয়ে আমিও আহত হয়েছি।
এব্যপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো:মারুফুল আলম বলেন বিষয়টি জেনেছি জায়গাটি খাশ; দেখছি মিমাংশা করা যায়কিনা।
ঘটনা সংক্রন্তে চিতলমারী থানার ওসি তদন্ত মোঃ আকরাম হোসেনের সাথে কথা হলে তিনি জানান ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়েছিল। অভিযোগ দিলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। ইলিয়াস শেখের সাথে কথা হলে তিনি বলেন যা হবার তাতো হইছে এখন কি করবো।

     এ জাতীয় আরো খবর..

আমাদের পত্রিকায় আপনাকে স্বাগতম

লাইভ ভিডিটর

33
Live visitors

সংবাদ খুজছেন… নিচের বক্সে শিরোনাম লিখুন