চিতলমারীতে সন্ত্রাসী হামলায় ৪ নারীসহ আহত ৮জন


মো: একরামুল হক মুন্সী:
বাগেরহাটের চিতলমারীতে জায়গা জমির পূর্ব বিরোধের জেরধরে শুক্রবার দুপুরে প্রতিপক্ষের হামলায় চার নারীসহ ৭ জন গুরুতর আহত হয়েছে। তাদের মধ্যে ৪জনকে রক্তাত্ত অবস্থায় চিতলমারী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যদের বিভিন্ন চিকিৎসা কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়।
আহতরা হলেন, উপজেলার হিজলা ইউনিয়নের বোয়ালিয়া উত্তর পাড়া গ্রামের নাছিমা বেগম (৩৫), মামুন হাওলাদার (৩৬),আল আমিন হাওলাদার (৪০),জাকিয়া বেগম (৩০), রেনু বেগম (৬২),বাবলু (৩২) ও তার স্ত্রী হেলেনা বেগম (২৭)।এরিপোর্ট লেখা পর্যান্ত এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছিল।
সরে জমিনে এলাকাবাসির সূত্রে জানাগেছে, (পূর্ব বিরোধের জেরধরে) শিশুদের মধ্যে শালিক পাখি ধরার ঘটনায় কথা কাটাকাটির মধ্যেদিয়ে শুক্রবার(৮মে) দুপুর সাড়ে তিনটার সময় প্রতি পক্ষ স্থানীয় এশারত হাওলাদারের নেতৃত্বে বাবুল হাওলাদার,শের আলী হাওলাদার,সবুজ হাওলাদারও সজিব হাওলাদার সহ ১০/১২জনের একটি দল লাঠি, সোটা, দা’ও হাতুড়ি নিয়ে আকস্মিকভাবে মুজিবুর রহমান হাওলাদারকে এবং তার বাড়িতে হামলা করে।
এহামলায় নাছিমা বেগম (৩৫), মামুন হাওলাদার (৩৬),আল আমিন হাওলাদার (৪০),জাকিয়া বেগম (৩০)ও রেনু বেগম (৬২),গুরুতর জখম হন। এসময় এলাকা বাসিরা তাদের উদ্ধার করে চিতলমারী হাসপাতালে ভর্তি করেন। হামলা কারি পক্ষের বাবলু (৩২)ও তারস্ত্রী হেলেনা বেগমও এসময় আহত হয়েছেন।
উভয়পক্ষের পরস্পর বিরোধি বক্তব্য পাওয়া গেছে। তবে স্থানীয় সাখাওয়াত হোসেন জানান, পরিকল্পিতভাবে মুজিবরের পরিবারের উপর হামলা চালানো হয়েছে যা খুব দুঃখ জনক। এরিপোর্ট রেখা পর্যন্ত থানায় অভিযোগের প্রস্তুতি চলছিল।
এব্যপারে চিতলমারী থানার আফিসার ইনচার্জ(ওসি) মীর শরিফুল হক জানান ঘটনা সংক্রান্তে অভিযোগ দিলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

     এ জাতীয় আরো খবর..

আমাদের পত্রিকায় আপনাকে স্বাগতম

লাইভ ভিডিটর

27
Live visitors

সংবাদ খুজছেন… নিচের বক্সে শিরোনাম লিখুন