চিতলমারীতে মিথ্যা ভিযোগে সাংবাদিক সম্মেলন।

মোঃ একরামুল হক মুন্সীঃ

বাগেরহাটের চিতলমারী ৭ নং সন্তোষপুর ইউনিয়নের দড়ি উমজুড়ি গ্রামের একটি মহল ষড়যন্ত্র করে এলাকার কতিপয় সহজ সরল ও দরিদ্র ব্যক্তিকে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে তাদের কাছ থেকে স্বাক্ষর গ্রহণ করেছে। প্রভাবশালী এই ব্যক্তিদের সহযোগিতায় সেই স্বাক্ষর ব্যবহার করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন দপ্তরে ওই ইউনিয়নের দুই ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোদ দায়ের করার প্রতিবাদে সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার(১৭জুলাই) সকাল সাড়ে ১১ টায় সন্তোষপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে এলাকার ভুক্তভোগীরা এ সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করেন। এ সময় সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বিধান হীরা জানান, কিছু দিন পূর্বে ওই এলাকার সুভাষ বৈরাগীর স্ত্রী চঞ্চলা বৈরাগী, জগদিস বৈরাগীর স্ত্রী সাধনা বাগচী ও নকুল বিশ্বাসের স্ত্রী অনিমা বাড়ৈ করোনা কালিন সময়ে প্রধানমন্ত্রী প্রদত্ত ২ হাজার ৫শ টাকার সরকারী অনুদান ও স্বামী পরিত্যক্তের ভাতা পাইয়ে দেয়ার কথা বলে তাদের কাছ থেকে সাদা কাগজে স্বাক্ষর নেন।

পরবর্তীতে তারা জানতে পারেন তাদের নাম ও স্বাক্ষর ব্যবহার করে সন্তোষপুর ইউনিয়নের ৪ নং ইউপি সদস্য হরেন্দ্রনাথ শিকদার ও ৫ নং ইউপি সদস্য শ্রীবাস রায়ের বিরুদ্ধে ঘর দেওয়ার নামে তাদের কাছ থেকে অর্থ গ্রহণ করেছেন এই মর্মে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে একটি মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করেণ।
কিন্তু প্রকৃত পক্ষে এ অভিযোগের বিষয়ে তারা কিছুই জানতেন না বলে সাংবাদিক সম্মেলনে উল্লেখ করেণ।

এ সময় সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সন্তোষপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি রসুল মাঝি, রিপন হিরা, সীমা হিরা, জয়ন্তি বৈরাগীসহ ভুক্তভোগী এলাকাবাসী।

এ ব্যাপারে চিতলমারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মারুফুল আলম জানান, অভিযোগকারী ব্যক্তিরা সহ দুই ইউপি সদস্যকে অভিযোগের সত্যতা যাচাইয়ের জন্য আমার কার্যালয়ে ডাকা হয়েছিল। অভিযোগকারীরা তখন এই বিষয়টি অস্বীকার করছেন। ঘটনাটি আবারও তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

     এ জাতীয় আরো খবর..

আমাদের পত্রিকায় আপনাকে স্বাগতম

সংবাদ খুজছেন… নিচের বক্সে শিরোনাম লিখুন