বাগেরহাটে করোনায় শিক্ষকের মৃত্যু !

বাবলু মন্ডল, বিশেষ প্রতিনিধি:

বাগেরহাটে করোনা পরিস্থিতি ক্রমেই ভয়াবহ হয়ে উঠছে।  শুক্রবার রাত ১টার দিকে জেলার ফকিরহাট উপজেলার  সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শেখ আব্দুল আজিজ (৫৫) করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। গত ১৯ জুলাই প্রধান শিক্ষক শেখ আব্দুল আজিজের করোনা ধরা পড়ে এবং ২৪ জুলাই তিনি মাসকাটা গ্রামের নিজ বাড়িতে মৃত্যুবরন করেন। এদিকে জেলায় গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আরো ২৬ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এই নিয়ে বাগেরহাট জেলায় করোনায় ১১ জনের মৃত্যুসহ আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৫১৫ জনে। জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ এতথ্য নিশ্চিত করেছে।

ফকিরহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. অসিম কুমার সমাদ্দার জানান, গত ১৯ জুলাই মাসকাটা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শেখ আব্দুল আজিজের নমুনা পরিক্ষার রিপোর্ট করোনা পজেটিভ আসে। এরপর তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার শারিরীক অবস্থার কিছুটা উন্নতি হলে তিনি নিজ বাড়ীতে এসে করোনা চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। এই অবস্থায় শুক্রবার রাত ১টার দিকে তিনি মাসকাটা গ্রামে নিজ বাড়ীতে মারা যান। করোনা স্বাস্থ্যবিধি মেনে দুপুরে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। এই নিয়ে ফকিরহাট উপজেলাতে করোনা আক্রান্ত হয়ে ৭ জনের মৃত্যু হল।

বাগেরহাটের সিভিল সার্জন ডা. কেএম হুমায়ুন কবির জানান, জেলায় গত ২৪ ঘন্টায় একজন প্রধান শিক্ষকের মৃত্যুসহ নতুন করে আরো ২৬ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে রয়েছে ফকিরহাটে উপজেলায় ৮ জন, শরণখোলা উপজেলায় ৬ জন, মোংলা উপজেলায় ৪ জন, চিতলমারী উপজেলায় ৪ জন, সদর উপজেলায় ৩ জন ও কচুয়া উপজেলায় ১ জন। এই নিয়ে বাগেরহাট জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৫১৫ জনে। এরমধ্যে ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এরমধ্যে ৩০১ জন সুস্থ্য হয়েছেন। অন্যরা চিকিৎসাধীন রয়েছেন। নতুন করোনা আক্রান্তদের বাড়ীতে ও প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে রেখে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। এসব করোনা আক্রান্তদের পরিবারের সদস্য ও সংর্স্পশে আসা লোকজনকে চিহ্নিত করে তাদের নমুনা সংগ্রহ করা হচ্ছে।

 

     এ জাতীয় আরো খবর..

আমাদের পত্রিকায় আপনাকে স্বাগতম

সংবাদ খুজছেন… নিচের বক্সে শিরোনাম লিখুন