ফেসবুকে আপত্তিকর পোষ্ট: দুইভাইয়ের দ্বন্দ; মিটিয়ে দিলেন “মা”

মো: একরামুল হক মুন্সী:
রাগান্বিত হয়ে বড় ভাইয়ের বিরুদ্ধে ছোট ভাইয়ের ফেসবুকে দেয়া অভিযোগকে (স্ট্যাটাস) ঘিরে নানা আলোচনা সমালোচনা চলছে বাগেরহাটের চিতলমারী উপজেলায়। জনপ্রিয় সমাজ সেবক ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মোর্শেদ স্বপনের নামে তার ছোট ভাই শেখ হাফিজুর রহমান (তুহিন) ফেসবুকে ওই অভিযোগ দেয়। এই দুই ভাই ঢাকায় বসবাস ও একই ধরণের ব্যবসা করেন।

ফলে তাদের মধ্যে ব্যবসায়ীক দ্বন্দের জের হিসেবে তুহিন গত ১০ আগস্ট ফেসবুকে স্বপনের নামে নানা অপমানজনক কুৎসা প্রচার করে। এর দুই দিন পর মায়ের কথায় নিজের ভুল বুঝতে পেরে শেখ হাফিজুর রহমান (তুহিন) ফেসবুকে দেয়া তার অভিযোগ বিনা ঘোষণায় তুলে নেন। এই অপপ্রচারণায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন তাদের মা রহিমা বেগম (৭০) এবং অন্যান্য ভাইয়েরা।

বুধবার(১২আগষ্ট) বিকেলে চিতলমারীর শিবপুর গ্রামের বাড়িতে বসে মঞ্জুর মোর্শেদ স্বপনের মা রহিমা বেগম সাংবাদিকদের জানান, যে কোন বিষয়ে ভাইয়ের সাথে আরেক ভাইয়ের দ্বন্দ, বিরোধ হতেই পারে- এটাই সংসারের বিধান। দুইভাইয়ের দ্বন্দ ইতোমধ্যে মিটানোর জন্য আমি উদ্যোগ নিয়েছি।তুহিনও স্বপনসহ সব ছেলে মেয়ে কে নিয়ে আমি বসবো। বিরোধ মিটিয়ে দেব; তারা আমার কথায় রাজি হয়েছে। এখন কোন বিরোধ নেই। তুহিন ভুল বুঝতে পেরে ফেসবুকের অভিযোগ তুলে নিয়েছে।

পারিবারিক সূত্র জানায়, শিবপুর গ্রামের মরহুম শেখ মোসলেম আলী ও রহিমা বেগমের ছয় ছেলে ও তিন মেয়ের মধ্যে মঞ্জুর মোর্শেদ স্বপন বয়সে বড়। তার চেয়ে ছোট ভাই লিটন শেখ খুলনায় ব্যবসা করে। এরপর মোঃ বাদশা শেখ শিবপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান। তার ছোট শেখ হাফিজুর রহমান (তুহিন) ঢাকার ব্যবসায়ী। তুহিনের ছোট ভাই শফিকুল ইসলাম বাবু বর্তমানে একজন ধার্মিক মানুষ।

ফেসবুকে দেয়া অভিযোগ সম্পর্কে শেখ হাফিজুর রহমান (তুহিন) বুধবার সন্ধ্যায় মোবাইলে জানান,  বড় ভাইয়ের সাথে পারিবারিক যে দ্বন্ধ তৈরী হয়েছে, তা মা মিটিয়ে দেবেন। তাই ফেসবুকের অভিযোগ তুলে নিয়েছি।

ফেসবুকে দেয়া অভিযোগ সম্পর্কে মঞ্জুর মোর্শেদ স্বপন বলেন, আমার ব্যবসায়িক ভাবমুর্তি ও সামাজিক অবস্থান ক্ষুন্ন করতে অন্য ব্যবসায়ি প্রতিদ্বন্দিদের দ্বারা প্ররোচিত হয়ে তুহিন হঠাৎ এই কাজ করে ফেলেছে। পরে আবার তার নিজের ভুল বুঝতে পেরে ফেসবুকের ওই অভিযোগ সে তুলে নিয়েছে।

শিবপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ বাদশা শেখ জানান, ফেসবুকের এই প্রচারণার ফলে আমাদের পরিবার নিয়ে সমাজে সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে। তৃতীয় পক্ষ, অর্থাৎ আমাদের শত্রুরা সুযোগ নিতে এই ধরণের পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছে। ভবিষ্যতে সব ভাই বোনদের এই ধরণের অপপ্রচারের ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে। লিটন শেখ জানান, ওই দুই ভাই-ই রাগী, তাদের শান্ত হতে হবে।

     এ জাতীয় আরো খবর..

আমাদের পত্রিকায় আপনাকে স্বাগতম

সংবাদ খুজছেন… নিচের বক্সে শিরোনাম লিখুন