অসভ্য প্রকৃতির মানুষগুলো পশুরুপ ধারন করেছে

মো: একরামুল হক মুন্সী

নীতিহীন সমাজ ব্যবস্থা আর লাগামহীন দুর্বৃত্তায়নে রাস্ট্রের আইনশৃঙ্খলা ক্রমশ অবনতির শিখরে ধাবিত হচ্ছে। অসভ্য প্রকৃতির মানুষগুলো যেন পশুরুপ ধারন করেছে।বেড়েগেছে নারী-শিশু ধর্ষন ও নির্যাতনের মাত্রা।পাষন্ড পশুগুলোর লাগাম টেনে ধরতে প্রশাসনের রিতিমত হিমশিম খেতে হচ্ছে।

প্রতিবাদে উত্তল হচ্ছে রাজপথ।চলছে বিক্ষোভ-মানববন্ধনসহ নানা ধরনের কর্মসূচী । পুলিশের লাঠিপেটা- হামলা, মামলাও চলছে প্রতিবাদী মানুষের প্রতি।কিন্তু কিছুতেই অপরাধীদের দমিয়ে রাখা যাচ্ছেনা।সব মিলিয়ে মানুষের নিরাপত্তা তলানিতে ঠেকেছে।

সোস্যাল মিডিয়া,পত্রিকার পাতা সহ প্রতিনিয়ত গনমাধ্যমের প্রতিবেদনে যে সকল লোম হর্ষক ঘটনা পরিলক্ষিত হচ্ছে তা যেন ১৯৭১কে হার মানিয়েছে।শিশু ধর্ষন, চাচা-ভাতিজিকে ধর্ষন, খালু-মেয়েকে ধর্ষন, ৭০ বছরর বৃদ্ধা কর্তৃক প্রাইমারী পড়ুয়া ছাত্রী ধর্ষণ, আবার বাবা মেয়েকে ধর্ষন করছে, শিক্ষক ছাত্রীকে ধর্ষন করছে, শিক্ষক শিক্ষিকাকে ধর্ষণ করছে, পালাক্রমে গনধর্ষণ করে থেমে থাকেনা, তাকে হত্যাকরে উল্লাস করে।

ধর্ষন এখন হয়ে গেছে সকালের পান্তাভাত খাবার মত। প্রতিনিয়ত যেমন খাবার খেতে হয় তেমনি খবারের মতো ধর্ষণ যেন স্বাভাবিক একটি বিষয় এমনটি মনে হয়।৭১ এর মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় যেমন পাকিস্তানী হানাদার ও দেশীয় রাজাকাররা মিলে বাংলাদেশের নিরহ মানুষের উপর ঝাপিয়ে পড়েছিলো ঠিক যেন তদ্রুপ। নারী ধর্ষন-শিশু ধর্ষন,গুম,হত্যা সহ মানবতা বিরোধী জঘন্য অপরাধ পাল্লা দিয়ে চলছে।

কে জানতো স্বাধিন বাংলাদেশের বিংশ শতাব্দি পার হতে চললেও আমাদের মা-বোনদের তৎকালিন সময়ের ন্যায় আজও তেমনটি ভাগ্যবরন করতে হবে? ।মা বোনদের ইজ্জত লুটের ইতিহাস পড়েছি,কিন্তু স্বচক্ষে দেখিনি,আজ স্বাধীনতার ৪৯ বছর পরেও যে বাংলাদেশের মা বোনদের নিজের ইজ্জত বাঁচাতে এমন করুণ আকুতি মিনতির চিত্র দেখতে হবে তা কখনো ভাবতেও পারিনি।

 

     এ জাতীয় আরো খবর..

আমাদের পত্রিকায় আপনাকে স্বাগতম

লাইভ ভিডিটর

28
Live visitors

সংবাদ খুজছেন… নিচের বক্সে শিরোনাম লিখুন