‘শ্রেষ্ঠ পন্ডিত’ যতীন্দ্র নাথ সরকার কেমন আছেন?

মো. একরামুল হক মুন্সী
‘শ্রেষ্ঠ পন্ডিত’ হিসেবে জাতীয় পর্যায় মানবাধিকার পুরস্কারপ্রাপ্ত শিক্ষক ও লেখক শ্রী যতীন্দ্র নাথ সরকার এখন বয়োবৃদ্ধ। শত বছর পুরো হতে আর মাত্র চার বছর বাকী। তাঁর লেখা প্রায় শতাধিক নাটিকা, দুই শতাধিক কবিতাও সঙ্গীত রয়েছে। কিন্তু সাহিত্যের এই পান্ডুলিপিগুলো আজো বই আকারে প্রকাশিত হয়নি। সেগুলো আঁকড়ে ধরে সময় কাটে এখন মানুষ গড়ার এই কারিগরের। তিনি স্বপ্ন দেখেন হয়তো একদিন পান্ডুলিপিগুলো বই আকারে জাতীয় বই মেলায় উঠবে। তাঁর জীবনের অর্জিত জ্ঞানের আলো ছড়িয়ে পড়বে চারিদিকে। তিনি তার লেখাগুলো বই আকারে প্রকাশের জন্য প্রকাশকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।
শিক্ষক যতীন্দ্র নাথ সরকারের সন্তানেরা সমাজে মর্যাদা সম্পন্ন মানুষ। বড় ছেলে কলেজের শিক্ষক, মেজ ছেলে রাজনৈতিক ও ধর্মীয় নেতা। ছোট ছেলে আবৃত্তিকার ও সাধারণ কৃষক।
এই জ্ঞানী মানুষের বাড়ি বাগেরহাটের চিতলমারী উপজেলার চরবানিয়ারী ইউনিয়নের চরবানিয়ারী রানাপাড়া গ্রামে। ১৯৯৯ সালে তিনি বাংলাদেশ মাইনোরিটিস রাইটস কমিশনের পক্ষ হতে ‘শ্রেষ্ঠ পন্ডিত’ হিসেবে মানবাধিকার সম্মাননায় ভূষিত হন। যতীন্দ্র নাথ সরকার চরবানিয়ারী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ছিলেন।

     এ জাতীয় আরো খবর..

আমাদের পত্রিকায় আপনাকে স্বাগতম

সংবাদ খুজছেন… নিচের বক্সে শিরোনাম লিখুন