চিতলমারীতে রানু মন্ডলের স্বপ্ন পুড়ে ছাঁই

মো. একরামুল হক মুন্সী:
মেধাবী ছাত্রী রানু মন্ডলের ভবিষ্যৎ এখন অন্ধকার। একটি অগ্নিকান্ডে তার সব স্বপ্ন পুড়ে ছাঁই হয়ে গিয়েছে। বেঁচে থাকার মত কোন অবলম্বন দেখছে না সে। কিভাবে পড়াশুনা চালিয়ে যাবে সে ব্যাপারে চরম হতাশায় দিন গুণছে। এ পরিস্থিতিতে বাগেরহাটের চিতলমারী উপজেলার খাসেরহাট বাজারের বাসিন্দা রানু মন্ডলের মা মেয়ের পড়াশুনা চালানোর জন্য সরকার এবং বিত্তবানদের সহায়তা কামনা করেছেন।
রানু মন্ডলের মা শেফালি মন্ডল কান্না জড়িত কন্ঠে জানান, সহায়-সম্বল বলতে কিছুই নেই তাদের। স্বামী মারা যাওয়ার পর একমাত্র মেয়ে রানুকে নিয়ে খাসেরহাট বাজারে একটু সরকারি জায়গা বরাদ্দ নিয়ে দীর্ঘদিন বসবাস করে আসছেন। দর্জি কাজ করে কোন রকম সংসার চালানোর পাশাপাশি মেয়ের পড়াশুনার খরচ চালান। রানু বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতকোত্তর (হিসাব বিজ্ঞান) বিষয়ে পড়াশুনা করছে। মেয়ের বিয়ের জন্য অনেক কষ্টে জমানো অর্থ দিয়ে সামান্য গহনাও তৈরি করে রেখে ছিলেন। কিন্তু গত ১৬ জানুয়ারী রাতে অগ্নিকান্ডে তাদের বসতঘরসহ ৩টি ঘর আগুনে ভষ্মীভূত হয়েছে। সবই পুড়ে গেছে আগুনে। এখন বেঁচে থাকার মত কোন পথ নেই। সামনে কিভাবে মেয়ের পড়াশুনার খরচ যোগাবেন সে চিন্তায় দিশেহারা। এ জন্য তিনি সরকার ও বিত্তবানদের সহায়তা কামনা করেছেন। সাহায্য পাঠানোর জন্য ডাসবাংলা ব্যাংকের ০১৭৩০৬২৮৮৫২ নম্বরে পাঠানো যেতে পারে।
রানু মÐলের প্রতিবেশি যমুনা বাড়ৈ,বিভা মিস্ত্রীসহ অনেকে জানান, রানু অত্যান্ত শান্ত, ভদ্র মেয়ে। এছাড়া মেধাবী ছাত্রী সে। অগ্নিকান্ডের দুর্ঘটনায় মা-মেয়ে কোন রকম জীবন নিয়ে ঘর থেকে বেরিয়ে এসেছে। সবই পুড়ে শেষ হয়ে গেছে তাদের। এখন রানুর পড়াশুনা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। এ অবস্থায় তাদের সাহায্যের হাত বাড়ানো দরকার।

     এ জাতীয় আরো খবর..

আমাদের পত্রিকায় আপনাকে স্বাগতম

সংবাদ খুজছেন… নিচের বক্সে শিরোনাম লিখুন