চিতলমারীতে ইউপি নির্বাচনকে ঘিরে দলীয় ক্ষোভ আর আবেগ

মো: একরামুল হক মুন্সী:
তীব্র অন্তর্দলীয় কোন্দল ও বিদ্রোহী প্রার্থী সামলাতে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন নির্দলীয়ভাবে সম্পন্ন করার চিন্তা হলেও আপাতত সেই ভাবনা থেকে পিছিয়ে এসেছে সরকার। আগামী ১১এপ্রিল থেকে অনুষ্ঠেয় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন দলীয় প্রতীকেই হচ্ছে।
অপরদিকে বিভিন্ন জায়গায় চাউর ছিলো যে, চেয়ারম্যান প্রার্থীর ক্ষেত্রে এইচএসসি এবং মেম্বার প্রার্থীর ক্ষেত্রে এসএসসি পাশ হতে হবে। এটিকে স্রেফ গুজব বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ।
এই ধারাবাহিকতায় আসন্ন ১১ এপ্রিলের ইউপি নর্িাচনে চেয়ারম্যান পদে বাগেরহাটের চিতলমারী উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের দলীয় টিকিট হাতে পেয়ে নৌকার মাঝি হিসেবে নবীন ও প্রবীনের সমন্বয়ে সৌভাগ্য অর্জন করেছেন সাতজন ভাগ্যবান।
৭ জনের মধ্যে রয়েছেন ১নং বড়বাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদে মোঃ মাসুদ সরদার, ২নং কলাতলা ইউনিয়ন পরিষদে মোঃ বাদশা মিয়া, ৩নং হিজলা ইউনিয়ন পরিষদে কাজী আবু সাহিন, ৪নং শিবপুর ইউনিয়ন পরিষদে মোঃ আলিউজ্জামান, ৫নং চিতলমারী সদর ইউনিয়ন পরিষদে মোঃ নিজাম উদ্দিন শেখ, ৬নং চরবানিয়ারী ইউনিয়ন পরিষদে অর্চনা দেবী বড়াল (ঝর্ণা) ও ৭নং সন্তোষপুর ইউনিয়ন পরিষদে বিউটি আক্তার।
এদেরর মধ্যে বিগত ইউপি নির্বাচনে দলীয় টিকিটে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন ৪ জন। আর নতুন করে মনোনয়ন পেলেন ৩জন। মোট ৭জন প্রার্থী এবার ইউপি নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন।
সোমবার (১৫মার্চ) উপজেলা নির্বাচন অফিসার মো.আব্দুল মজিদ ও সংশ্লিষ্ঠ নির্বাচনী ফর্মবিক্রয়ের দায়িত্ব প্রাপ্ত কর্মকর্তাগন চিতলমারীর অন্তরালেকে জানিয়েছেন যে, আগামি ১১ এপ্রিল ইউপি নির্বাচন শান্তিপূর্ণ করার লক্ষ্যে সব ধরণের প্রস্তুতি হাতে নেওয়া হয়েছে।
সে লক্ষ্যে চেয়ারম্যানপদে অদ্য সোমবার পর্যন্ত ১নং বড়বাড়িয়া ইউনিয়নে ফর্ম কিনেছেন ৪জন, ২নং কলাতলা ইউনিয়নে ফর্ম কিনেছেন ৩জন, ৩নং হিজলা ইউনিয়নে ফর্ম কিনেছেন ৪জন, ৪নং শিবপুর ইউনিয়ন পরিষদে ফর্মকিনেছেন ১জন। ৫নং চিতলমারী সদর ইউনিয়নে ফর্ম কিনেছেন ২জন, ৬নং চরবানিয়ারী ইউনিয়নে ১জন এবং ৭নং সন্তোষপুর ইউনিয়নে ফর্ম কিনেছেন ৪জন।

     এ জাতীয় আরো খবর..

আমাদের পত্রিকায় আপনাকে স্বাগতম

সংবাদ খুজছেন… নিচের বক্সে শিরোনাম লিখুন