চিতলমারী প্রতিদ্বন্দি না থাকায়  চার ইউপি চেয়ারম্যান!

মো: একরামুল হক মুন্সী:
বাগেরহাটের চিতলমারী উপজেলার সাতটি ইউনিয়নের মধ্যে চারটিতে নৌকা প্রতীকের চার জন প্রার্থীর কোন প্রতিদন্দিতা না থাকায় প্রাথমিকভাবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। বাকি তিনটি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আট জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধিতা করবেন। এছাড়া সাতটি ইউনিয়নেই ইউপি সদস্য পদে নির্বাচন হবে। উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আব্দুল মজিদ এই তথ্য জানিয়েছেন। তিনি আরো জানান, স্বাস্থ্য বিধি ও নির্বাচনী আচরণ বিধি মেনে প্রচারণা করতে হবে। ভোটাররা প্রার্থীদের যোগ্যতা নিয়ে চুলচেরা বিশ্লেষণ শুরু করেছেন।
উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আরো জানান, আগামী ১১ এপ্রিলের ইউপি নির্বাচন। গত ১৮ মার্চ পর্যন্ত এখানে নৌকা প্রতীকের সাত জন চেয়ারম্যান প্রার্থীর বিপরীতে ১৭ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেয়। ২৪ মার্চ নৌকার মনোনয়ন বঞ্চিতদের মধ্যে অনেকেই তাদের প্রার্থীতা প্রত্যাহার করেন।
ফলে চারটি ইউনিয়নে নৌকার একক প্রার্থী থাকায় তাদেরকে বেসরকারিভাবে চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত ঘোষণা করেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা। নির্বাচিতরা হলেন, ৩নং হিজলা ইউনিয়ন পরিষদে কাজী আবু সাহিন, ৪নং শিবপুর ইউনিয়ন পরিষদে অলিউজ্জামান জুয়েল, ৬নং চরবানিয়ারী ইউনিয়ন পরিষদে অর্চণা দেবী বড়াল ঝর্ণা এবং ৭ নং সন্তোষপুর ইউনিয়ন পরিষদে বিউটি আক্তার।
অপরদিকে, যে তিনটি ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন হবে সেগুলো হচ্ছে- ১নং বড়বাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকে মো. মাসুদ সরদার, স্বতন্ত্রপ্রার্থী অহিদুজ্জামান পান্না শেখ, ২নং কলাতলা ইউনিয়ন পরিষদে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকে মো. বাদশা শেখ, স্বতন্ত্রপ্রার্থী শিকদার মতিয়ার, আবু জাফর মো. আলমগীর হোসেন, শেখ ফরিদ এবং ৫নং চিতলমারী সদর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকে মো. নিজাম উদ্দিন শেখ এবং স্বতন্ত্রপ্রার্থী মো. সাহেব আলী ফরাজী ভোটযুদ্ধে লড়বেন।
এ উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা এক লাখ ১০ হাজার ৮১৬ জন। তার মধ্যে ৫৬ হাজার ৯৪৮ পুরুষ এবং নারী ভোটার ৫৩ হাজার ৮৬৮ জন । সাধারণ ওয়ার্ড রয়েছে ৬৩টি। সংরক্ষিত ওয়ার্ড ২১টি। ভোট কেন্দ্রের সংখ্যা ৬৪টি, ভোট কক্ষের সংখ্যা ৩২২টি।

     এ জাতীয় আরো খবর..

আমাদের পত্রিকায় আপনাকে স্বাগতম

লাইভ ভিডিটর

25
Live visitors

সংবাদ খুজছেন… নিচের বক্সে শিরোনাম লিখুন