চিতলমারীতে ধর্ষণের শিকার ষষ্ট শ্রেণীর ছাত্রী: আত্মহত্যার চেষ্টা

মোঃ একরামুল হক মুন্সী:
বাগেরহাটের চিতলমারীতে ননী গোপাল বিশ্বাস নামে এক ইউপি সদস্য ষষ্ট শ্রেণীর এক ছাত্রীকে হাত ও মুখ বেধে ধর্ষণ করেছে বলে ভিকটিমের পরিবার সূত্রে জানা গেছে। এ ঘটনায় ভিকটিম লোক লজ্জার ভয়ে ঘরের আড়ায় ওড়না দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা চালিয়েছে। বর্তমানে ওই ইউপি সদস্য পলাতক রয়েছে।
পুলিশ ও ভিকটিমের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার চরবানিয়ারী ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ননী গোপাল বিশ্বাস রবিবার সকাল ১১ টায় ত্রাণ দেওয়ার কথা বলে ওই ওয়ার্ডের এক ভোটারের বাড়িতে যান। এ সময় বাড়িতে কোন লোকজন না থাকায় ওই ছাত্রীকে কাছে ডেকে ইউপি সদস্য একগ্লাস পানি আনতে বলেন। এ সময় মেয়েটি পানি নিয়ে কাছে আসলে লম্পট ইউপি সদস্য ননী গোপাল বিশ্বাস তাকে ঘরে আটকে হাত-মুখ বেধে উপর্যপুরি ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়।
ঘটনার পর ওই নাবালিকা লোক লজ্জার ভয়ে ঘরের আড়ায় ওড়না দিয়ে আত্মহত্যা করতে গেলে এ সময় তার মা বাড়িতে আসেন। তিনি মেয়ের মুখে ঘটনার বিবরণ শুনে পরিবারের অন্যদের জানালে তারা পুলিশকে খবর দেন। ন্যাক্কারজনক এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। ইউপি সদস্য ননী গোপাল বিশ্বাস পাঁচপাড়া গ্রামের রণজিৎ বিশ্বাসের ছেলে। ঘটনার সাথে জড়িত ননী গোপালের দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তি দাবি করেছেন ভিকটিমের পরিবার ও এলাকাবাসি।
চিতলমারী থানার ওসি(তদন্ত) মো. ইকরাম হোসেন জানান, খবর পেয়ে তিনি ভিকটিমের বাড়িতে ছুটে যান। ধর্ষণের আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে। ভিকটিমকে ডাক্তারী পরিক্ষার জন্য পাঠানো হবে। বিষয়টি গুরুত্বের সাথে দেখা হচ্ছে। এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

     এ জাতীয় আরো খবর..

আমাদের পত্রিকায় আপনাকে স্বাগতম

লাইভ ভিডিটর

28
Live visitors

সংবাদ খুজছেন… নিচের বক্সে শিরোনাম লিখুন