চিতলমারীতে প্রখর রোদও দাবদাহে মাটি ফেঁটে চৌচির

মোঃ একরামুল হক মুন্সী:
বাগেরহাটের চিতলমারীতে প্রখর রোদ এবং প্রচন্ড দাবদাহে মাটি ফেঁটে চৌচির হয়ে গেছে। এতে উপজেলার অধিকাংশ ক্ষেতের ফসল রোদে পুড়ে নষ্ট হওয়ার উপক্রম হয়েছে। এ অবস্থায় বাজারে অপেক্ষাকৃত মৌসুমি ফল কম দেখা যাচ্ছে। সিজনাল ফলগুলো পরিপক্ক না হয়ে প্রচন্ডতাপদাহে তা পোকামাকড় আক্রান্ত হয়ে (অধিকাংশ ক্ষেত্রে) খাবার অনুপোযগী হয়ে পড়েছে।
চৈত্র কিংবা বৈশাখ মাসে কম-বেশি বৃষ্টিপাত হলে, গ্রীষ্মকালীন প্রচুর সবজিও ফলমূল বাজারে পাওয়া যেত। বাজার মূল্যও তুলনামূলক কম থাকত । কিন্তু‘ চলতি মৌসুমে আবহাওয়া আনুকুলে না থাকায়, অধিকাংশ কৃষক লোকসানের মুখে পড়বে বলে তাদের অভিমত।
দেখা গেছে প্রতি বছর গ্রীষ্মকালীন সময় দেশের দক্ষিনাঞ্চলের চিতলমারী উপজেলার সাধারন মানুষকে তীব্র পানির সংকটে পড়তে হয়। এতে অস্বস্তিতে ফেলে দেয় এখানকার সাধারন মানুষকে। এমন প্রতিকুল পরিবেশে যেমন খাবার পানির সংকট দেখা দেয়। অপরদিকে কৃষকের মাথায়ও হাত উঠে পানি বিহীন কৃষি খামার প্র¯‘ত করতে।
প্রতি বছরের ন্যায় এবছরও উপজেলার বিভিন্ন খাল-বিলও মৎস্যঘের শুখিয়ে মাটি চৌচির হয়ে গেছে। পানির অভাবে সেখানে প্রচুর পরিমান মাছের মড়কও লেগেছে। বৃষ্টির পানি ছাড়া বিকল্প পানির ব্যবস্থা না থাকায় উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় এমন সমস্যার সৃষ্টি একদিনের নয়।
এটা দীর্ঘদিনের কৃত্রিম সংকট বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সাধারন মানুষ। এ সংকট নিরাসনে পরিকল্পিত স্থায়ী সমাধান চেয়েছেন উপজেলার ভুক্তভোগি জনগন।

     এ জাতীয় আরো খবর..

আমাদের পত্রিকায় আপনাকে স্বাগতম

সংবাদ খুজছেন… নিচের বক্সে শিরোনাম লিখুন