চিতলমারীতে ওসি’র হস্তক্ষেপে কেটে দেয়া ঘেরের পাড় পুনঃ নির্মাণ

মোঃ একরামুল হক মুন্সী:
বাগেরহাটের চিতলমারীতে অসহায় এক কৃষকের চিংড়িঘেরের পাড় কেটে এলাকার কতিপয় প্রভাবশালী লোকজন দখল করে নেয়ার চেষ্টা চালায়। এ বিষয়ে গত ৫ জুন চিতলমারীরর অন্তরালে পত্রিকার অনলাইন ভার্সন সহ বিভিন্ন প্রত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হলে বিষয়টি প্রশাসনের নজরে আসে। এ ব্যাপারে থানায় অভিযোগ দেওয়া হলে চিতলমারী থানার ওসি এ এইস এম কামরুজ্জামানের কঠোর হস্তক্ষেপে ৮জুন মঙ্গলবার ঘেরে পূনরায় পাড় নির্মাণ করে ওই কৃষক দখলে আসেন। প্রশাসনের এমন পদক্ষের জন্য ক্ষতিগ্রস্ত ওই কৃষক ও এলাকাবাসি ওসি এ এইস এম কামরুজ্জামান ও মিডিয়াকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।
উপজেলার সদর ইউনিয়নের সাবোখালী গ্রামের প্রান্তিক কৃষক প্রকাশ মজুমদার জানান, গত ৪ জুন শুক্রবার তার একটি চিংড়িঘের প্রতিবেশি ধীরেন্দ্র নাথ ঢালী, বিরেন্দ্র নাথ ঢালী লোকজন নিয়ে জোরপূর্বক দখল নিতে আসে। এ সময় তারা ঘেরের একটি পাড় কেটে দেয়। এ ব্যাপারে থানায় অভিযোগ দেওয়া হলে চিতলমারী থানার ওসি এ এইস এম কামরুজ্জামানের সহযোগিতায় তারা পূনরায় পাড় তৈরি করে দখলে যেতে পেরেছেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
এ বিষয়ে সাবোখালী গ্রামের প্রভাষ মজুমদার জানান, দিন দুপুরে এসে প্রতিপক্ষরা প্রকাশ মজুমদারের ঘেরের পার কেটে দেয় এবং তারা দখলে আসার চেষ্টা করে। বিষয়টি থানাকে জানালে ওসি সাহেব জোর পদক্ষেপ নেওয়ায় দখলদাররা হটে যায়।
কৃষক প্রকাশ মজুমদারের স্ত্রী শান্তি লতা মজুমদার আবেগ জড়িত কন্ঠে জানান, আমরা অসহায় মানুষ। প্রতিপক্ষরা শক্তিধর হওয়ায় আমরা তাদের হুমকিতে ছিলাম। আমাদের ঘের থেকে তারা উচ্ছেদ করে দিতে চেয়েছিল কিন্তু বিষয়টি ওসি সাহেবকে জানালে তিনি আমাদের ঘের উদ্ধারের জন্য যে সহায়তা করেছেন সেটির জন্য ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই।
চিতলমারী থানার ওসি এ এইস এম কামরুজ্জামান জানান, প্রকাশ মজুমদারের ঘেরের পার কেটে প্রতিপক্ষের দখল নেওয়ার বিষয়টি জানতে পেরে ওই কৃষক যাতে ক্ষতিগ্রস্ত না হয় সেজন্য তার ঘেরের পাড় বাধ দেয়ার জন্য বলা হয়েছে। এখন দুই পক্ষকে ডেকে শান্তিপূর্ণ একটা সমাধান দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে।

     এ জাতীয় আরো খবর..

আমাদের পত্রিকায় আপনাকে স্বাগতম

সংবাদ খুজছেন… নিচের বক্সে শিরোনাম লিখুন