চিতলমারীতে লকডাউন বাস্তবায়নে সেনা টহল;স্থানীয় প্রশাসন হার্ডলাইনে

 মো: একরামুল হক মুন্সী:

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে ঈদের পর ২৩ জুলাই থেকে  ১৪ দিনের বিধিনিষেধ জারি করা হয় সময় আগের বিধিনিষেধকালের মতোই মাঠে থাকবে সেনাবাহিনী১৩ জুলাই মঙ্গলবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে জারি করা প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছিলো, ‘আর্মি ইন এইড টু সিভিল পাওয়ারএই বিধানের আওতায় মাঠ পর্যায়ে কার্যকর টহল নিশ্চিত করার জন্য সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ প্রয়োজনীয় সংখ্যক সেনা মোতায়েন করবে। জেলা ম্যাজিস্ট্রেট স্থানীয় সেনা কমান্ডারের সঙ্গে যোগাযোগ করে সেনা মোতায়েনের বিষয়টি নিশ্চিত করবেন

 তারই ধারাবাহিকতায় আজ ২৪ জুলাই বাগেরহাটের চিতলমারী সদর বাজারে সেনাবাহিনীর একটি ভ্রাম্যমান টহল দলও উপজেলা প্রশাসন মাইকিং করে সকলকে মাস্কপরিধানসহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে আহবান জানায়।এসময় বরিশাল শেখ হাসিনা সেনানিবাসের ৭ পদাতিক ডিভিশনে কর্মরত ক্যাপ্টেন শাহিন স্থানীয় গনমাধ্যমকে চলমান লকডাউনে সেনাবাহিনীর ভূমিকা বিষয়ক সংক্ষিপ্ত ব্রিফ করেন।ব্রিফিং কালে উপস্থিত ছিলেন চিতলমারী উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি)ওএক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট জান্নাতুল আফরোজ স্বর্নাসহ সঙ্গীয় ফোর্স। একই দিনে চলমান লকডাউন বাস্তবায়নের লক্ষ্যে থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি)এ এইস এম কামরুজ্জামানের নের্তৃত্বে পুলিশের একটি দল সদর বাজারসহ বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করেন। এসময় ওসিএ এইস এম কামরুজ্জামান সংবাদিকদের চলমান পরিস্থিতি নিয়ে ব্রিফ করেন।

     এ জাতীয় আরো খবর..

আমাদের পত্রিকায় আপনাকে স্বাগতম

সংবাদ খুজছেন… নিচের বক্সে শিরোনাম লিখুন