শত বছর ধরে সাঁকোই যাদের ভরসা

বিশেষ প্রতিনিধি:
গত শত ধরে একটি বাঁশের সাঁকো পার হয়ে যাতায়েত করছে বাগেরহাটের চিতলমারী উপজেলার চরনবানিয়ারীর উত্তরপাড়ার বাসিন্দারা। এতে ওই এলাকার কয়েক হাজার লোকজনকে পোহাতে হচ্ছে চরম দুর্ভোগ। পারাপারের জন্য একটি কাঠের পুলের দাবি জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা।
স্থানীয়দের সাখে আলাপ করে জানা গেছে, চরবানিয়ারী উত্তরপাড়া খালের উপর পারাপারের জন্য প্রায় শত বছর আগে একটি বাঁশের সাঁকো দেওয়া হয়। প্রতি বছর সেটি মেরামতের মাধ্যমে মাঠের কৃষিপণ্য আনা-নেওয়াসহ আশপাশের কয়েক গ্রামের প্রায় ৩ হাজার লোককে ওই সাঁকো পার হয়ে যাতায়েত করতে হয়। ওই সাঁকোটি ব্যক্তিমালীকাধীন জায়গার সামনে হওয়ায় বর্তমানে জায়গার মালিক সেখানে সমাধী মন্দির করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এতে করে বিপাকে পড়েছেন ওই এলাকার কয়েক হাজার বাসিন্দা। বিষয়টি সমাধানের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ভুক্তভোগীরা।
এ ব্যাপারে স্থানীয় সাবেক ইউপি সদস্য সুদাস বিশ্বাস জানান, ওই সাঁকোটি প্রায় শত বছরের পুরণো। এলাকাবাসির সহায়তায় এটি তৈরি করা হয়। যুগ যুগ ধরে মানুষ এখান থেকে পারাপার হয়ে আসছেন। কিন্তু জায়গাটি ব্যক্তিমালীকাধীন হওয়ায় ওই পথটি বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। পাশেই জনৈক ব্যক্তি
সরকারি খালের খাস জায়গা দখল করে সেখানে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান তুলেছেন। ওই প্রতিষ্ঠানের বামপাশে খালের খাস জায়গার কিছু উত্তর দিকে, খালের উপর একটি সাঁকো তৈরির মাধ্যমে দীর্ঘদিনেরএ সমস্যা সমাধান করা সম্ভব বলে স্থানীয়রা সংশ্লিষ্ঠ কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করেছেন।
এ ব্যাপারে উপজেলা চেয়ারম্যান অশোক মকুমার বড়াল জানান, বিষয়টি আমি জেনেছি, ওখানে সাধারন মানুষের সুভিধা মাথায় রেখে; পারাপারেরজন্য সু ব্যবস্থা করা হবে।

     এ জাতীয় আরো খবর..

আমাদের পত্রিকায় আপনাকে স্বাগতম

সংবাদ খুজছেন… নিচের বক্সে শিরোনাম লিখুন